স্কোয়াশ চাষে কৃষক জালাল উদ্দিনের সাফল্য

মাগুরায় স্কোয়াশ চাষে কৃষক জালাল উদ্দিনের সাফল্য এসেছে। তিনি মাগুরা জেলার সদর উপজেলার ছোটফালিয়া গ্রামের বাসিন্দা। এবারের মৌসুমে তার ২৩ শতক জমিতে স্কোয়াশ চাষ করে সফলতার দেখা পান। বিদেশি সবজি চাষে তার এই সফলতা দেখে এখন অনেকেই আগ্রহী হয়েছেন।

এক আত্মীয়ের মাধ্যমে এই সবজি চাষের বিষয়ে জানতে পারেন তিনি। পরে আগ্রহী হয়ে তার নিজের জমিতেই চাষ শুরু করেন স্কোয়াশ। সঠিক নিয়ম মেনে চাষ করায় বাম্পার ফলন পেয়েছেন তিনি। এই মৌসুমে স্কোয়াশ চাষ করে প্রায় ১ লাখ টাকা আয় করতে পারবেন বলে আশা করছেন তিনি।

কৃষক জালাল উদ্দিন বলেন, মামুনুল হক নামে তার এক আত্মীয়ের কাছ থেকে এ বীজ সংগ্রহ করি। গত বছর গ্রীষ্ম মৌসুমে মিষ্টি কুমড়া জাতীয় এ সবজির চাষ করেছিলাম কিন্ত তেমন লাভবান হয়নি। চলতি শীত মৌসুমে চাষ করে ফলন ভালো পেয়েছি। বাজারে এই সবজির দামও বেশ ভালো পাচ্ছি। এ ক্ষেত থেকে প্রায় লক্ষাধিক টাকার স্কোয়াশ বিক্রি করতে পারবো বলে আশা করছি।

উপজেলা কৃষি অফিস জানায়, স্কোয়াশ বিদেশি সবজি হলেও আমাদের দেশে সাধারণত দোআঁশ মাটিতে এর ফলন ভালো হয়। স্কোয়াশ ভিটামিন ‘এ’ ও ‘সি’ ও আয়রনসহ বিভিন্ন পুষ্টিগুণে ভরা একটি সবজি। মাগুরাতে কিছু কিছু এলাকায় কৃষকরা এটি চাষ করে ভালো ফলন পেয়েছেন।

মাগুরা সদরের উপজেলা কৃষি অফিসার আবু তালহা বলেন, আমাদের দেশের স্কোয়াশ একটি নতুন ধরনের একটি সবজি। এরই মধ্যে বাজারে এটির চাহিদা বেড়েছে। জালাল উদ্দিন এ সবজির চাষ করে সফল হওয়ায় আরও অনেকেই আগ্রহী হবেন।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...