বিপাকে মানিকগঞ্জের চাষিরা পেঁয়াজের বাম্পার ফলনেও

চলতি মৌসুমে আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ও জমি চাষের উপযোগী হওয়ার কারণে পেঁয়াজ চাষ করে বেশ ভালো ফলন পেয়েছেন এখানকার স্থানীয় কৃষকরা। পেঁয়াজের বাম্পার ফলনেও বিপাকে পড়েছেন মানিকগঞ্জের চাষিরা। তবে ফলন ভালো হলেও বাজারে পেঁয়াজের দাম না পাওয়ায় হতাশায় ভুগছেন চাষিরা।

গত মৌসুমে পেঁয়াজের দাম ভালো পেয়ে এবার আরও বেশি জমিতে পেঁয়াজের চাষ করেছিলেন মানিকগঞ্জের চাষিরা। ফলন ভালো পেলেও তারা এখন পেঁয়াজের দাম না পেয়ে বেশ হতাশ। বাজারে পেঁয়াজের মন্দা থাকায় চাষের খরচের টাকা তুলতেই হিমশিম খাচ্ছেন অনেক কৃষক। ফলে অনেকেই পেঁয়াজ চাষে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন।

পেঁয়াজ চাষি হাবিবুর রহমান বলেন, চলতি মৌসুমে ৪০ শতাংশ জমিতে সাগা পেঁয়াজের চাষ করেছি। সঠিক নিয়ম মেনে পেঁয়াজের চাষ করায় এবার ফলন বেশ ভালো হয়েছিল। তবে বাজারে পেঁয়াজের যে দাম রয়েছে তাতে খুব একটা লাভের আশা করছি না। এবার উৎপাদন বৃদ্ধি পাওয়ায় বাজারে পেঁয়াজের দাম কমে গেছে।

আরেক কৃষক আমজাদ আলী জানান, চলতি মৌসুমে পেঁয়াজের বাম্পার ফলন হলেও লোকসানে পেঁয়াজ বিক্রি করতে হচ্ছে চাষিদের। প্রত্যেক মণ পেঁয়াজের ফলন পেতে প্রায় এক হাজার টাকা খরচ হয়। আর বাজারে এখন ৯০০ টাকা মণে পেঁয়াজ বিক্রি করতে হচ্ছে। ফলে লোকসান গুনতে হচ্ছে চাষিদের।

মানিকগঞ্জ জেলার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শাহজাহান আলী বলেন, অনূকুল আবহাওয়ার কারণে মানিকগঞ্জে পেঁয়াজের বাম্পার ফলন হয়েছে। চলতি মৌসুমে জেলায় ৫ হাজার ৯৫৪ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। কৃষি কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় কৃষকরা পেঁয়াজের বাম্পার ফলন পেয়েছেন।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...