চাষি দিনবন্ধু অসময়ে তরমুজ চাষ করে স্বাবলম্বী

জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার জয়দেবপুরের দিনবন্ধু অসময়ে সুস্বাদু ফল তরমুজ চাষ করে লাভবান হয়েছেন। এই তরমুজের ভালো ফলন ও বাজারে বেশি দাম পেয়ে লাভবান হওয়া যায় বলে কৃষকরা তরমুজ চাষে ঝুঁকছেন। কৃষকদের তরমুজ চাষের প্রশিক্ষণ ও সহযোগীতা করছে বলে জানায় কৃষি বিভাগ।

জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার জয়দেবপুরের দামুদরপুর গ্রামের তরমুজ চাষি দিনবন্ধু এবছরই প্রথম অসময়ের তরমুজ চাষ করেছেন। তরমুজ চাষের প্রথম বছরেই সফলতা পেয়েছেন তিনি। আগস্ট মাসে চারা রোপন করেছিলেন। চারা রোপনের আড়াই মাসের মধ্যেই তরমুজ বিক্রি করা শুরু করেছেন। দিনবন্ধু ছাড়াও এ জেলার অসংখ্য কৃষক এই তরমুজ চাষ করেছেন। এ সময়ে অন্য ফল কম থাকায় বাজারে দাম ভালো পাওয়ায় তরমুজ চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছেন কৃষকরা ।

তরমুজ চাষি দিনবন্ধু বলেন, আমি এবছর আমার ৩৩ শতাংশ জমিতে এই তরমুজ চাষ করেছি। তরমুজ চাষে আমার ৪১ হাজার ৫০০ টাকার মতো খরচ হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৮৪ হাজার ৪০০ টাকার তরমুজ বিক্রি করতে পেরেছি। জমিতে যা তরমুজ রয়েছে তা আরো ২০ হাজার টাকা বিক্রি করতে পারবো।

বর্তমান বাজারে ছোট গুলো ৮০০ টাকা, মাঝারি গুলো এক হাজার ৫০০ টাকা ও বড় সাইজের তরমুজ এক হাজার ৯০০ টাকা মণ বিক্রি হচ্ছে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক কৃষিবিদ মো: শফিকুল ইসলাম বলেন, অন্যান্য জেলার পাশাপাশি জয়পুরহাট জেলায়ও অসময়ের তরমুজের চাষ হচ্ছে। এই জেলায় প্রথমে ৫ হেক্টর জমিতে তরমুজ চাষ হলেও বর্তমানে ৩শ হেক্টর জমিতে ওই তরমুজের চাষ হচ্ছে। অসময়ে তরমুজ চাষ লাভজনক হওয়ায় কৃষকরা আগ্রহী হয়ে উঠছেন। আগামীতে এর চাষ আরো বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...