গমের ভেষজগুণ ও উপকারিতা

গম বিশ্বব্যাপী উৎপাদিত একটি ঘাস জাতীয় উদ্ভিদ। প্রোটিনের নিরামিষ উৎস হিসেবে মানুষের খাদ্যে তালিকাতে থাকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।গমের ভেষজগুণ ও উপকারিতা রয়েছে অনেক।

পুষ্টি গুণ: গম হতে যে আটা হয় তার প্রতি ১০০ গ্রাম আটায় আমিষ ১২.১ গ্রাম, শর্করা ৬৯.৪ গ্রাম, ক্যালসিয়াম ৪৮ মিলিগ্রাম, লৌহ ১১.৫ মিলিগ্রাম, ক্যারোটিন ২৯ মাইক্রোগ্রাম, ভিটামিন বি-১ ০.৪৯ মিলিগ্রাম, ভিটামিন বি-২ ০.২৯ মিলিগ্রাম, আঁশ ১.৯ গ্রাম, খনিজ পদার্থ ২.৭ গ্রাম এবং জলীয় অংশ থাকে ১২.২ গ্রাম।

ভেষজগুণ: 
ব্যবহার: ভুট্টার দানা মানুষের খাদ্য হিসেবে এবং ভুট্টার গাছ ও সবুজ পাতা উন্নত মানের গোখাদ্য হিসেবে ব্যবহৃত হয়। হাঁস-মুরগি ও মাছের খাদ্য হিসেবেও এর যথেষ্ট গুরূত্ব রয়েছ। শুধু পশু, মুরগির খামার ও মাছের চাহিদা মিটানোর জন্যই বছরে প্রায় ২ লক্ষ ৭০ হাজার টন ভুট্টা দানা প্রয়োজন।

উপকারিতা: 
দাতের ক্ষয় রোধ করে : গম পাতার রস দাঁত দীর্ঘায়ূ করার ক্ষেত্রেও এর ভূমিকা গুরুত্বপূর্ন । দাঁতের মাড়িকে ও এটি সুস্থ রাখে ।

বয়সকে ধরে রাখে:
 এতে থাকা এনজাইমের একাধিক উপকারিতার মদ্যে এটি একটি । আপনার বয়সের ছাপও আপনার শরীর ও মনে পরবে না । বয়সের গতিও অনেকটাই কমিয়ে দিতে পারে এর নিয়মিত ব্যবহার ।

অ্যান্টিব্যকটেরিয়াল : এটি একটি অ্যান্টিব্যকটেরিয়াল উপাদান । আপনার শরীরে বাসা বেধে থাকা সমস্ত ক্ষতিকর ব্যবটেরিয়াগুলিকে নিমূল করার জন্য এটি একটি অদ্বিতীয় উপাদান ।

ত্বকের যত্নে ব্যবহার করুন: একজিমা রোদে পুড়ে যাওয়া ইত্যাদি ক্ষেত্রে এটিকে অয়েন্টমেন্টের মতো ব্যবহার করলে দ্রূত ফল পাাবেন । ব্রন বা মুখের দাগের ক্ষেত্রেও এটির উপকারিতা পাবেন।

কোষ্ঠকাঠিন্য নিয়ন্ত্রনে রাখে : গম পাতার রসে থাকা কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যাকে অনেকটা নিয়ন্ত্রনে রাখে ।

খুশকি দূর করে : আপনি যদি গমের রসকে মাথায় লাগিয়ে রাখেন ও তারপর ১৫ মিনিট পরে মাথা শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলেন, তাহলে আপনার খুশকি নিয়ে দুশ্চিন্তায় মিটে যাবে ।

গাটের ব্যাথাকে কমায় : যে বয়সই হোক না কেন এটি গাঁটের ব্যাথাকে কমানোর ক্ষেত্রেও একে কাজে লাগিয়ে দেখতে পারেন।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...